Hawkerbd.com     SINCE
 
 
 
 
বাংলাদেশি জাহাজে ৪০% পণ্য পরিবহনের বিধান রেখে আইন হচ্ছে [ ] 11/11/2017
বাংলাদেশি জাহাজে ৪০% পণ্য পরিবহনের বিধান রেখে আইন হচ্ছে
কামরুল ইসলাম

বাংলাদেশে সমুদ্রপথে আমদানি-রপ্তানি পণ্য পরিবহনের ৪০ শতাংশ সক্ষমতা নেই দেশীয় পতাকাবাহী জাহাজের। তা সত্ত্বেও এমন বিধান রেখে প্রণীত হচ্ছে বাংলাদেশ পতাকাবাহী জাহাজ (সংরক্ষণ) আইন, ২০১৭। মন্ত্রিসভায় তা নীতিগত অনুমোদনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়। আইনের খসড়া ইতিমধ্যে তৈরি হয়েছে।

নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো. মুহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, আইনটি মন্ত্রিসভায় অনুমোদনের জন্য পেশের আগে যাচাই বাছাই করা হবে। আগামী ১৯ নভেম্বর এ ব্যাপারে একটি সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভায় সব স্টেকহোল্ডার, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মতামত নেয়া হবে। এরপর খসড়া চূড়ান্ত করা হবে।
আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন যে বর্তমানে এমন বিধান রেখে আইনের কোন উপযোগিতা নেই। এতে বৈদেশিক বাণিজ্যে সমস্যা সৃষ্টি এবং হয়রানি হবে প্রচুর। তারা এ প্রসঙ্গে জানান, দেশে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের প্রায় ৮২ ভাগ হয় সমুদ্রপথে। আর সমুদ্রপথে বাণিজ্যের প্রায় ৭০ ভাগ পণ্য পরিবহন করা হয় কন্টেইনার জাহাজে। প্রতিবছর তা বাড়ছে ২০ শতাংশ হারে। কিন্তু বাংলাদেশ পতাকাবাহী কোন কন্টেইনার জাহাজ নেই। বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের সব জাহাজ স্ক্র্র্যাপ হয়ে গেছে। বেসরকারি মালিকানাধীন এইচআরসি শিপিং-এর কয়েকটি কন্টেইনার জাহাজ ছিল সেগুলোও নেই। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশ পতাকাবাহী বিদেশগামী জাহাজের সংখ্যা ছিল ৬৩টি। বর্তমানে আছে ২৫টি। এগুলোর পরিবহন ক্ষমতা মোট সমুদ্র বাণিজ্যের ৬ শতাংশের বেশি নয়। বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন আগামীতে যে ক’টি জাহাজ সংগ্রহ করছে এগুলোর মধ্যে কোন কন্টেইনার জাহাজ নেই। এসব প্রেক্ষাপটে ৪০ শতাংশ পণ্য বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজে পরিবহনের বিধান রাখার কোন যৌক্তিকতা নেই। অবশ্য, বাংলাদেশ পতাকাবাহী জাহাজ না থাকলে সেক্ষেত্রে অব্যাহতি সনদ ( সার্টিফিকেট অব ওয়েভার ) নেয়ার বিধান থাকবে। স্টেকহোল্ডাররা মনে করেন যে ওয়েভার নেয়া এক বড় সমস্যা এবং হয়রানির। তা সময়সাপেক্ষও। তাতে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। তাই এমন বিধান না করাই শ্রেয়। তবে, দেশীয় মালিকানায় সে সক্ষমতা অর্জিত হলে তখন তাদের ব্যবসা নিশ্চিত করার জন্য সে সময়ে তা করা যায়। কিন্তু বর্তমান সময়ে এমন আইন শুধু সমস্যা বৃদ্ধি করবে।

জাতিসংঘের আংকটাডে স্বাক্ষরকারী দেশ বাংলাদেশ। এই বিধি অনুসারে আন্তর্জাতিক সমুদ্রপথের পণ্য পরিবহন ব্যবসার ৪০ শতাংশ রপ্তানিকারক দেশ, ৪০ শতাংশ আমদানিকারক দেশ এবং ২০ শতাংশ পাবে যার সামর্থ বেশি সে। আংকটাডে স্বাক্ষরকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ ১৯৮২ সালে জারি করে ফ্ল্যাগ ভেসেলস ( প্রটেকশন ) অর্ডিনেন্স। তাতে উল্লেখ ছিল বাংলাদেশ পতাকাবাহী জাহাজ অন্তত ৪০ শতাংশ পরিবহন করবে। আর সামর্থ অর্জনের সাথে সাথে এই হার বৃদ্ধি পাবে। তখন জাহাজ ছিল রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের। কিন্তু সংস্থাটির কখনও এই পরিমাণ পণ্য পরিবহনের সক্ষমতা ছিল না। তারপরও সার্টিফিকেট অব ওয়েভার নিতে গিয়ে প্রচুর ঝামেলায় পড়তে হয়েছে। জাহাজ না থাকলেও সংস্থাটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জাহাজ রয়েছে দাবি করে নানাভাবে সমস্যা তৈরি করেছেন। তা থেকে পরিত্রাণ পেতে দাবি ওঠে অধ্যাদেশটি স্ক্র্যাপ করার। এ অবস্থার মধ্যে আবারও অনুরূপ বিধান রেখে আইন হলে একই সংকট সৃষ্টি হবে আশংকা করা হচ্ছে।

১৯৮২ সালে আলোচ্য অধ্যাদেশটি জারি হয়েছিল সামরিক ফরমান দিয়ে। সুপ্রিম কোর্টেও আপিল বিভাগ কর্তৃক প্রদত্ত রায়ে সামরিক আইনকে অসাংবিধানিক ঘোষণা, এর বৈধতা প্রদানকারী সংবিধান ( সপ্তম সংশোধন ) আইন, ১৯৮৬ বাতিল হওয়ায় অধ্যাদেশসমূহের কার্যকারিতা লোপ পায়। তাই নতুন আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে। ১৯৮২ সালের অধ্যাদেশে বাংলাদেশ পতাকাবাহী জাহাজ বলতে ছিল বিএসসির জাহাজ। এবার নতুন আইনে ‘বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ’ বলতে বাংলাদেশে নিবন্ধিত জাহাজ বুঝাবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তাছাড়া, বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ নয়, এমন বিদেশি জাহাজে উপকূলীয় অঞ্চলে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক পণ্য পরিবহন করা যাবে না। তবে, কর্তৃপক্ষ কর্তৃক জারিকৃত অব্যাহতি সনদপ্রাপ্ত জাহাজের ক্ষেত্রে তা প্রযোজ্য হবে না বলে খসড়ায় উল্লেখ রয়েছে।
News Source
 
 
 
 
Today's Other News
• ১০ হাজার হজযাত্রীর প্রতিস্থাপন চায় হাব
• মিথ্যা ঘোষণায় আসা পণ্য আটকে বন্দরে বেড়েছে নজরদারি
• যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানিতে সাফল্য
• হজ নিয়ে ঝামেলার শেষ নেই
• ছয় জাহাজে দূর হচ্ছে ২৭ বছরের অপেক্ষা
• বাণিজ্য উত্তেজনা সত্ত্বেও উড়োজাহাজ শিল্প চাঙ্গার পূর্বাভাস বোয়িংয়ের
• বিশ্বের সেরা উড়োজাহাজ সংস্থা সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস
• নিট আয় বেড়েছে চট্টগ্রাম বন্দরের
• চালু হচ্ছে ই পাসপোর্ট
• সাত হাজার হজযাত্রীর বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত দেয়নি এজেন্টরা
More
Related Stories
 
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
 
 
Home / About Us / Benifits / Invite a Friend / Policy
Copyright © Hawker 2013-2012, Allright Reserved
free counters